Search This Blog

Sunday, September 9, 2018

September 09, 2018

সকল সিম এর দরকারি কোড

Grameen Phone
Show SIM Number : *2#

Balance Check : *566#

Minute Check : *566*24# , *566*20#

Package Check : *111*7*2#

SMS Check : *566*2#

MMS Check : *566*14#

Data (MB) Check : *566*10# , *567#

Call Me Back : *123*Number#

Net Setting Request : *111*6*2#

Miss Call Alert (On) : type START MCA & 

Send to 6222

Miss Call Alert (Off) : Type STOP MCA & Send to 6222

All Service type “Stop all” and send 2332
Welcome tune : Type “Stop” and send to 4000
I
nternet off : *500*40#
Facebook Type “Stop” and send to 32665
Facebook USSD dial *325*22#
Mobile Twitting Type “Stop” and send to 9594

Call Block : Type “Stop CB” and send to 5678

Missed Call Alert write “STOP MCA” and send to 6222

Banglalink

Show SIM Number : *511#

Balance Check : *124#

Minute Check : *124*2#

Package Check : *125#

SMS Check : *124*3#

MMS Check : *124*2#

Data (MB) Check : *124*5# , *222*3#

Call Me Back : *126*Number#

Net Setting Request : Type ALL & Sent to 3343

Miss Call Alert (On) : Type START & Send to 622

Miss Call Alert (Off) : Type STOP & Send to 622

Robi

Show SIM Number : *2#

Balance Check : *222#

Minute Check : *222*3#

Package Check : *140*14#

SMS Check : *222*11#

MMS Check : *222*13#

Data (MB) Check : *222*81# , 8444*88#

Net Setting Request : *140*7#

Miss Call Alert (On) : Type ON & Send to 8272

Miss Call Alert (Off) : Type OFF & Send to 8272

Airtel

Show SIM Number : *121*6*3#

Balance Check : *778#

Minute Check : *778*5# or *778*8#

Package Check : *121*8#

SMS Check : *778*2#

MMS Check : *222*13#

Data (MB) Check : *778*39# or *778*4#

Call Me Back : *121*5#

Net Setting Request : *140*7#

Miss Call Alert (On) : *121*3*4#

Teletalk

Show SIM Number : *551# Or Type “Tar” & send to 222

Balance Check : *152#

Minute Check : *152#

Package Check : unknown

SMS Check : *152#

MMS Check : *152#

Data (MB) Check : *152#

Net Setting Request : Type SET & Send to 738

Miss Call Alert (On) : Type REG & Send to 2455



Miss Call Alert (Off) : Type CAN & Send to 245
September 09, 2018

এন্ড্রয়েড কে ভাইরাস হতে বাঁচাতে জরুরী ৫ টি টিপস

এন্ড্রয়েড কে ভাইরাস হতে বাঁচাতে জরুরী ৫ টি টিপস

আমরা প্রতিদিনের অনেক কাজেই আমাদের গুরুত্বপূর্ন এন্ড্রয়েড ফোন টিকে ব্যাবহার করছি। অনেকেই এটি ব্যাবহার করেন ডিজিটাল পার্সোনাল অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসেবে। এতে সংরক্ষন করেন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট এর ইনফর্মেশন সহ অনেক জরুরী তথ্য। এসব তথ্য যদি পরে কোনো হ্যাকার এর হাতে, তাহলে কি হতে পারে চিন্তা করে দেখেছেন? এন্ড্রয়েড এ সাধারনত ওপেন সোর্স কিছু আপ্পস এর মাদ্ধমে ভাইরাস ঢুকতে পারে(পেইড আপ্পস দ্বারা ও এটি ঘটা সম্ভব)। আমরা প্রায় ই গুগল প্লে ব্যাতীত বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে আপ্পস ডাউনলোড করি। এগুলতেও থাকতে পারে ম্যালওয়ার!

এখানে গুরুত্বপূর্ন ৫ টি টিপস আছে যেগুলো আপনাকে এসব ভাইরাস এর হাত থেকে বাচতে সহায়তা করবে।

১। যে অ্যাপ সম্পর্কে জানেন না সেটি ইন্সটল করবেন না

অপরিচিত কেউ কোন খাবার দিলে যেমন আপনি খান না, তেমন ই অপরিচিত কোন অ্যাপ ইন্সটল করবান না। বর্তমানে হ্যাকার রা ইমেইল, ম্যাসেজ প্রভৃতির মাধ্যমে তাদের তৈরী অ্যাপ ইন্সটল করার জন্য ম্যাসেজ পাঠায়। যেটি সম্পর্কে আপনি সিওর না সেটি ইন্সটল করতে জাবেন না। এমন ও হতে পারে অই অ্যাপ দ্বারাই আপনার সকল তথ্য হাতিয়ে নিয়ে যাবে হ্যাকার।

২। গুগল প্লে বা বিশ্বাসযোগ্য অ্যাপ স্টোর হতে অ্যাপ ইন্সটল করুন

আপনি সাধারনত কোথা থেকে খাবার কিনবেন? ফুটপাথ থেকে নাকি ফ্রিজ এ রাখা নিরপদ কোন দোকান থেকে? অবশ্যই নিরাপদ দোকান থেকে। তেমন অ্যাপ ডাউনলোড করুন গুগল প্লে কিনবা নিরাপদ কোনো অ্যাপ স্টোর থেকে(Amazon App Store ও খারাপ না) তারা প্রতিটা অ্যাপ আলাদা ভাবে চেক করে। তাই স্বভাবতই এ অ্যাপ স্টোর গুলো অনেক নিরাপদ।

৩। “Install from unknown sources” – অফ রাখুন

Install from unknown sources মানে ভেরিফাইড অ্যাপ স্টোর ব্যাতীত অন্য কোনো স্থান থেকে অ্যাপ ইন্সটল করা যাবে। কিন্তু এতে অনেক সিক্যুরিটি রিস্ক থাকে। এবং Verify Apps এ মার্ক করে রাখুন। এতে যে কোন অ্যাপ ইন্সটল করার আগে নেট থেকে অ্যাপ সম্পর্কে আপনার ডিভাইস নিশ্চিত হবে।

৪। অ্যাপ ইন্সটল করার আগে permissions গুলো পড়ুন

Unwanted অ্যাপ থেকে বাঁচার সবচেয়ে ভালো উপায় এটি। Permissions গুলো পড়লেই বুঝবেন এই অ্যাপ টি আপনার ডিভাইস এর কি কি অ্যাক্সেস করতে পারবে। যদি মনে করেন এটি এমন কিছুর অ্যাক্সেস চাইছে যার সাথে এর কাজের কোনো সামঞ্জস্য নেই, অই অ্যাপ ইন্সটল না করাই ভালো। আর যদি আপনার ডিভাইস এর Contacts, Account Information অ্যাক্সেস করতে চাইছে তাহলে কএকবার ভেবে নিন ইন্সটল করবেন কিনা।

৫। Antivirus ইন্সটল করতে পারেন

অনেকে মোবাইল এ Antivirus ব্যাবহার করে। অনেকে করে না। আপনার কি করা উচিত? এ ব্যাপারে বলব আপনি যদি সব কিছু গুগল প্লে বা ভেরিফাইড কোনো অ্যাপ স্টোর থেকে ইন্সটল করেন তাহলে আপনার কোন Antivirus ইন্সটল করা লাগবে না। গুগল প্লে প্রতিটি অ্যাপ নিখুতভাবে স্ক্যান করে। তবু অতিরিক্ত সতর্কতার জন্য Antivirus ইন্সটল করতে পারেন।

September 09, 2018

স্মার্টফোন অত্যাধিক গরম হওয়ার কারন সমূহ

স্মার্টফোন অত্যাধিক গরম হওয়ার কারন সমূহ


 দেখুন যদি গরম হওয়ার কথা বলি তবে বলতেই হয় যে প্রতিটি ইলেক্ট্রনিক যন্ত্রপাতি বা মেশিন ই গরম হয়। উদাহরণ সরূপ আপনার গাড়ি, কম্পিউটার ইত্যাদি সব কিছুই গরম হওয়া থেকে বিরত নয়।গাড়ি ঠাণ্ডা রাখতে পানি ঢালা হয়, কম্পিউটার ঠাণ্ডা রাখতে ফ্যান ব্যবহার করা হয় তাছাড়া এর ভেতর HeatSheild থাকে। তো আসলে বলতে পারেন স্বাভাবিক ভাবে স্মার্টফোন একটি ইলেক্ট্রনিক যন্ত্র হওয়ার কারনে এটি গরম হয়। তারপরও আমি আপনাদের সব কিছু খুলে বলবো। তো চলুন জেনে নেয় স্মার্টফোন অত্যাধিক গরম হওয়ার কারন সমূহ।

 প্রসেসরঃ স্মার্টফোন গরম হওয়ার জন্য প্রথম যে দায়ী তা হলো প্রসেসর। প্রসেসর আপনার ফোন এর প্রধান অঙ্গ সরূপ। যে আপনার ফোন এর প্রতিটি কাজ করে থাকে। আপনি ফোন ব্যবহার করেন আর নাই বা করেন প্রসেসর কিন্তু সবসময় চলতে থাকে এবং তার কাজ করতে থাকে। আর এই প্রসেসর নির্মাণ করা হয় অর্ধপরিবাহী পদার্থ দিয়ে। এবং এর ভেতর অনেক ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ইলেকট্রন থাকে। যখন প্রসেসর তার কাজ করে তখন এই ইলেকট্রন গুলো এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় দৌড়াদৌড়ি করে (সহজ ভাষায়)। এবং এই দৌড়াদৌড়ি করার সময় ইলেকট্রন গুলো নিজেদের ভেতর সংঘর্ষ ঘটায় এবং তাপ উৎপাদন করে। অর্থাৎ আপনার প্রসেসর যত বেশি কাজ করে তাপ ও ততো বেশি উৎপাদন হয়। আপনি যদি কম কাজ করেন, যেমন ধরুন শুধু ফোন এ কথা বলছেন, কিংবা মিউজিক শুনছেন তবে আপনার ফোনটি কম গরম হবে। কিন্তু মনে করেন আপনি গেম খেলছেন এবং একসাথে ইন্টারনেট থেকে কোনো ফাইল ও ডাউনলোড করছেন, তবে স্বাভাবিক ভাবেই আপনার ফোন এর প্রসেসর কে বেশি কাজ করতে হবে এবং যার ফলে বেশি গরম হবে আপনার স্মার্টফোনটি। আজকাল কার স্মার্টফোন গুলো দিন এর পর দিন চিকন হয়ে যাচ্ছে। এখন প্রসেসর এর দ্বারা উৎপন্ন তাপ আপনার ফোনটি চিকন হওয়ার কারনে বের হতে পারে না। এবং লক্ষ করলে দেখা যাবে যে আপনার ফোন এর প্রসেসরটি ফোন বডির সাথেই লেগে থাকে, যার ফলে খুব তারাতারি এবং অত্যাধিক গরম অনুভূত হয়।

 অত্যাধিক লোডঃ আমি আগেই বলেছি অত্যাধিক লোড ফেললে আপনার ফোনটি দ্রুত এবং বেশি গরম হবে। স্বাভাবিক কাজ যেমন ফোন এ কথা বলা, এসএমএস সেন্ড করা বা গান শোনার মত ছোট কাজ এ কম গরম হবে আপনার ফোনটি। কিন্তু আপনি যখন অনেক গুলো কাজ এক সাথে করবেন বা কোনো বড় কাজ করবেন তখন আপনার ফোনটি অত্যাধিক লোড এর সম্মক্ষিন হবে এবং স্মার্টফোন অত্যাধিক গরম হবে।

 ব্যাটারিঃ স্মার্টফোন গুলো দিনদিন চিকন হয়েই চলছে।
 ব্যাটারি প্রযুক্তিতে তেমন একটা বিশেষ উন্নতি আনা হচ্ছে না। তারপর ফোনটি অনেক চিকন হওয়ার কারনে যন্ত্রপাতি গুলোর একে অপরের মধ্যে খুব বেশি দূরত্ব থাকে না। ব্যাটারি চার্জ বা ডিসচার্জ হওয়ার সময় কম বেশি গরম হয়েই থাকে। আর যন্ত্রপাতি গুলোর একে অপরের মধ্যে খুব বেশি দূরত্ব না থাকার ফলে এই ব্যাটারির গরম সব দিকে ছড়িয়ে পরে এবং আপনার স্মার্টফোন অত্যাধিক গরম হয়ে পরে। পরিবেষ্টিত তাপমাত্রাঃ স্মার্টফোন অত্যাধিক গরম, হওয়ার আরেকটি বড় কারন কিন্তু পরিবেষ্টিত তাপমাত্রা হতে পারে। সাধারন ভাবে গ্রীষ্মকালে বাংলাদেশের তাপমাত্রা ৩৫-৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত হয়ে যায়। এই পরিবেশে আপনি ঘরে বসে থাকলেও আপনার আসেপাশের তাপমান থাকে প্রায় ৩৫-৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর এই তাপমান এর ভেতর আপনি স্মার্টফোন ব্যবহার করলে এটি আরো তাড়াতাড়ি গরম হয়ে পরবে। 

দুর্বল নেটওয়ার্ক সিগনালঃ মনে করুন আপনি এমন এক জায়গায় আছেন, যেখানে নেটওয়ার্ক সিগনাল খুব দুর্বল। অথবা আপনার ওয়াইফাই সিগনাল অনেক কষ্টে আপনার স্মার্টফোন অবধি আসছে। এই অবস্থায় আপনার স্মার্টফোন এ বেশি চার্জ খরচ হয়। দুর্বল নেটওয়ার্ক সিগনাল পাওয়ার জন্য আপনার ফোনটি অ্যান্টেনাতে বেশি পাওয়ার প্রয়োগ করে, যাতে ফোনটি ভালো সিগনাল ধরতে পারে। এতে স্মার্টফোনটির প্রসেসরকে অনেক বেশি কাজ করতে হয়। এবং স্মার্টফোন অত্যাধিক গরম হয়ে পরে।

 কতটা গরম হওয়া স্বাভাবিক এবং কতটা গরম হওয়া অস্বাভাবিক 



 এখন চলুন কথা বলি স্মার্টফোন স্বাভাবিক এবং অস্বাভাবিক গরম হওয়া নিয়ে। স্বাভাবিক অবস্থায় কাজ করতে করতে আপনার স্মার্টফোনটি ৩৫-৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত গরম হতে পারে। আর বিশ্বাস করুন এটা শুধু আপনার ফোন এর ক্ষেত্রে না, বরং সবারই গরম হয়। আপনার ফোনটি কম দামী বলেই যে বেশি গরম হচ্ছে, তা কিন্তু মতেও ঠিক নয়। স্যামসাঙ বলুন আর অ্যাপেল, সব ফোনই কিন্তু গরম হয়। তবে হাঁ, আপনি যদি লক্ষ্য করে দেখেন যে আপনার ফোনটি সবসময়ই ৩৫-৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত গরম থাকছে। এমন কি যখন আপনার ফোনটি স্ট্যান্ড-বাই মোড এ থাকে তখনও, তবে আপনার ফোন এ সমস্যা আছে।


 স্মার্টফোন অত্যাধিক গরম হওয়াতে কি কি অসুবিধা হতে পারে? 



 কর্মক্ষমতা হ্রাস পাওয়াঃ 
স্মার্টফোন অত্যাধিক গরম হওয়াতে আপনার ফোন এর কর্মক্ষমতা হ্রাস পেতে পারে। দেখুন স্মার্টফোন এর প্রসেসরকে এমন ভাবে তৈরি করা হয় যাতে এটি বেশি গরম হয়ে পরলে কাজ করা কমিয়ে দেয়, যাতে এটি ঠাণ্ডা হতে পারে। আর প্রসেসর স্বয়ংক্রিয়ভাবে কাজ করা কমিয়ে ফেলার জন্য আপনার স্মার্টফোন এর কর্মক্ষমতা হ্রাস পেতে পারে।

 অত্যাধিক গরম হওয়া থেকে স্মার্টফোনকে কীভাবে রক্ষ্যা করবেন? 



 স্মার্টফোনে বেশি কাজ করা যাবে না বা বেশি গেম খেলা যাবে না, আসলে ব্যাপারটা কিন্তু তা নয়। অত্যাধিক গরম হওয়া থেকে স্মার্টফোনকে বাচাতে চাইলে আপনার ফোন এর সফটওয়্যার গুলো কে আপডেট রাখুন। অনেক সময় ফোন এর সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যার সমকক্ষতা রাখতে বার্থ হয়। সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। নিয়মিত অনুসন্ধান করে দেখুন যে কোন কোন অ্যাপস ব্যাকগ্রাউন্ড এ বেশি জায়গা নিচ্ছে। সে অ্যাপস গুলো সনাক্ত করে অস্থায়ী ভাবে বন্ধ করে রাখুন।

Friday, September 7, 2018

September 07, 2018

এবার ফেসবুক লাইট ফ্রী চালান ভিডিও দেখতে পারবেন

আসসালামু আলাইকুম,  সবাই কেমন আছেন, আশা করি ভালো আছেন,সবার জন্য অনেক ভালাবাসা নিয়ো  আজকের পোষ্ট শুরু করছি ⇨ 

আমি আগের পোষ্টে  দেখিয়েছিলাম যে আপনারা কি করে ফ্রি ফেসবুক ভিডিও সহ দেখবেন,  কিন্তু দু:খ এর বিষয় হলো ওটা সবার মোবাইলে চলে নাই 

তাই আজ একটা নতুন মুড নিয়ে আলোচনা করবো যেতাটে আপনার ফ্রিতে ফেসবুকের সকল ভিডিও দেখতে পারবেন কোনো রকম ঝামেলা ছাড়া, 

এবার ডাওনলোড এর কথায় আসি,  প্রথমে আপনার মোবাইলে যদি অফিসিয়াল ফেসবুক লাইট অথবা মুড ফেসবুক লাইট থাকে তাহল সেটা uninstall দেন তারপর নিচের লিংক থেকে ফেসবুক এর নতুন মুড টা ইন্সটল দেন, Facebook-mod তার পর ওইটাই লগইন করে মজা মারুন,  আর হ্যা এই মুড টা আমি বানিয়েছি তাই ভালো লাগলে একটা কমেন্ট করবেন,  আর পোষ্ট সবাই পেয়ে যাতে উপক্রিত হয় তারজন্য শেয়ার করবেন

বি:দ্র: আমি এটা গ্রামিন এবং বাংলালিকে চালিয়েছি,  রবি এয়ারটেল এ চলবে কি না জানি না,  ট্রাই করে দেখতে  পারেন

তো আর বেশি কথা বলে আপনাদের সময় নষ্ট করতে চাই না আজ এই প্রযন্তই আশা করি ভালো থাকবেন 

September 07, 2018

ফ্রি ফেসবুক লাইট দিয়ে এখন শুধু না এখন ভিডিও চলবে

আসসালামু আলাইকুম,  সবাই কেমন আছেন ? আশা করি ভালো আছেন,  
আজকে আমি আপনাদের আজ এমন একটা বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো যার মধ্যে আপনারূ অনেক উপকারী হবেন আশা করি,  তা আর কথা না বাড়িয়ে আজকের পোষ্ট শুরু করতে চাচ্ছি
আজ আমি দেখাবো আপনারা কি করে ফেসবুক লাইট দিয়ে ফ্রিতে ভিডিও দেখতে পারবেন কোনো প্রকার ডাটা চার্জ ছাড়া,  আপনরা হইতো এত দিন ফ্রি ফটো  সহ ফেসবুক চালিয়েছেন আজ থেকে আপনারা ভিডিও দেখতে পারবেন,  সো প্রথমে এই লিংক থেকে Free Facebook ফেসবুক এর মুড ভার্শন টা ডাওনলোড করে নিবেন তারপর ইন্সটল দিবেন,  তারপর লগইন করে মজা উপভোগ করেন